LearnArticle
EN লেখক লগইন লেখক হোন
Alal Mahmud
প্রকাশকাল (২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮)

f
t

নোয়াখালী জেলার উপজেলা, দর্শনীয় স্থান এবং নোয়াখালী সংক্রান্ত আরও কিছু তথ্য

চাঁদপুর জেলার উপজেলা, দর্শনীয় স্থান ও জেলা সংক্রান্ত অন্যান্য তথ্য

১৮২১ সালে নোয়াখালী জেলা প্রতিষ্ঠিত হয়। নোয়াখালীর আয়তন ৩৬৮৫.৮৭ বর্গকিলোমিটার। নোয়াখালী জেলার পূর্ব নাম সুধারাম বা ভুলুয়া। জেলাটি মেঘনা ও ডাকাতিয়া নদীর তীরে অবস্থিত। নোয়াখালী জেলা মুক্তিযুদ্ধের সময় ১০ নং সেক্টরের অধীনে ছিল। 


নোয়াখালীর উপজেলা সমূহঃ নোয়াখালী জেলায় ৯টি উপজেলা নোয়াখালী, কোম্পানীগঞ্জ, বেগমগঞ্জ, হাতিয়া, সুবর্ণচর, কবিরহাট, সেনবাগ, চাটখিল ও সোনাইমুড়ী।

দর্শনীয় স্থানঃ ঐতিহ্যবাহী নোয়াখালী জেলা বাংলাদেশের মানুষের কাছে সুপরিচিত। নোয়াখালীর ভাষা সম্পর্কে সবারই কম বেশি ধারণা আছে। নোয়াখালী জেলার অনেক দর্শনীয় স্থান রয়েছে যার মধ্যে অন্যতম- নিঝুম দ্বীপ, শহীদ ভুলু স্টেডিয়াম, বজরা শাহী মসজিদ, গান্ধি আশ্রম, ম্যানগ্রোভ বনাঞ্চল- চর জব্বর, নোয়াখালী জেলা জামে মসজিদ- মাইজদী, নোয়াখালী কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার- মাইজদী, মাইজদী কোর্ট বিল্ডিং দীঘি- মাইজদী, বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ মোহাম্মদ রুহুল আমিন গ্রন্থাগার ও স্মৃতি জাদুঘর- সোনাইমুড়ী, মহাত্মা গান্ধী জাদুঘর, মুছাপুর ক্লোজার- কোম্পানিগঞ্জ ইত্যাদি।

হোটেল ও রেস্টহাউজঃ নোয়াখালীর প্রধান হোটেলগুলোর মধ্যে আছে- বিআরডিবি রেস্ট হাউস, আল-আমিন গেস্ট হাউস, পূবালী হোটেল, হোটেল আল-মোর্শেদ, হোটেল মৌচাক, হোটেল লিটন, হোটেল নিজাম, হোটেল রাফসান, হোটেল আর-ফারহান, 
হোটেল রয়েল, গুড হিল কমপ্লেক্স, থ্রী স্টার আবাসিক হোটেল ইত্যাদি।

Alal Mahmud
প্রকাশকাল (২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮)

Alal Mahmud-এর আরও প্রবন্ধ পড়ুন

যশোর জেলার উপজেলা, দর্শনীয় স্থান এবং যশোরের আরও কিছু তথ্য

চুয়াডাঙ্গা জেলার উপজেলা, দর্শনীয় স্থান এবং চুয়াডাঙ্গার আরও কিছু তথ্য

ভোলা জেলার উপজেলা, দর্শনীয় স্থান এবং ভোলার আরও কিছু তথ্য

মন্তব্য(০)
উত্তর(০)

মন্তব্য ও উত্তর লিখতে অনুগ্রহ করে লগইন করুন!!

আরও প্রবন্ধ পড়ুন






© ২০১৬ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত LearnArticle.com