LearnArticle
EN লেখক লগইন লেখক হোন
Alal Mahmud
প্রকাশকাল (২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮)

নোয়াখালী জেলার উপজেলা, দর্শনীয় স্থান এবং নোয়াখালী সংক্রান্ত আরও কিছু তথ্য

ফেনী জেলার উপজেলা, দর্শনীয় স্থান ও ফেনী সংক্রান্ত উপকারী কিছু তথ্য

১৮২১ সালে নোয়াখালী জেলা প্রতিষ্ঠিত হয়। নোয়াখালীর আয়তন ৩৬৮৫.৮৭ বর্গকিলোমিটার। নোয়াখালী জেলার পূর্ব নাম সুধারাম বা ভুলুয়া। জেলাটি মেঘনা ও ডাকাতিয়া নদীর তীরে অবস্থিত। নোয়াখালী জেলা মুক্তিযুদ্ধের সময় ১০ নং সেক্টরের অধীনে ছিল। 


নোয়াখালীর উপজেলা সমূহঃ নোয়াখালী জেলায় ৯টি উপজেলা নোয়াখালী, কোম্পানীগঞ্জ, বেগমগঞ্জ, হাতিয়া, সুবর্ণচর, কবিরহাট, সেনবাগ, চাটখিল ও সোনাইমুড়ী।

দর্শনীয় স্থানঃ ঐতিহ্যবাহী নোয়াখালী জেলা বাংলাদেশের মানুষের কাছে সুপরিচিত। নোয়াখালীর ভাষা সম্পর্কে সবারই কম বেশি ধারণা আছে। নোয়াখালী জেলার অনেক দর্শনীয় স্থান রয়েছে যার মধ্যে অন্যতম- নিঝুম দ্বীপ, শহীদ ভুলু স্টেডিয়াম, বজরা শাহী মসজিদ, গান্ধি আশ্রম, ম্যানগ্রোভ বনাঞ্চল- চর জব্বর, নোয়াখালী জেলা জামে মসজিদ- মাইজদী, নোয়াখালী কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার- মাইজদী, মাইজদী কোর্ট বিল্ডিং দীঘি- মাইজদী, বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ মোহাম্মদ রুহুল আমিন গ্রন্থাগার ও স্মৃতি জাদুঘর- সোনাইমুড়ী, মহাত্মা গান্ধী জাদুঘর, মুছাপুর ক্লোজার- কোম্পানিগঞ্জ ইত্যাদি।

হোটেল ও রেস্টহাউজঃ নোয়াখালীর প্রধান হোটেলগুলোর মধ্যে আছে- বিআরডিবি রেস্ট হাউস, আল-আমিন গেস্ট হাউস, পূবালী হোটেল, হোটেল আল-মোর্শেদ, হোটেল মৌচাক, হোটেল লিটন, হোটেল নিজাম, হোটেল রাফসান, হোটেল আর-ফারহান, 
হোটেল রয়েল, গুড হিল কমপ্লেক্স, থ্রী স্টার আবাসিক হোটেল ইত্যাদি।

Alal Mahmud
প্রকাশকাল (২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮)

Alal Mahmud-এর আরও প্রবন্ধ পড়ুন

পিরোজপুর জেলার উপজেলা, দর্শনীয় স্থান এবং পিরোজপুরের আরও কিছু তথ্য

ফেনী জেলার উপজেলা, দর্শনীয় স্থান ও ফেনী সংক্রান্ত উপকারী কিছু তথ্য

মন্তব্য(০)
উত্তর(০)

মন্তব্য ও উত্তর লিখতে অনুগ্রহ করে লগইন করুন!!

আরও প্রবন্ধ পড়ুন






© ২০১৬ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত LearnArticle.com